স্মার্টফোন টিপস

ফেসবুক একাউন্ট এর সিকিউরিটি বাড়ানোর ‍উপায়।

ফেসবুক একাউন্ট এর সিকিউরিটি বাড়ানোর ‍উপায় গুলো জেনে নিন। ফেসবুক বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। আমরা প্রায় সবাই ফেসবুক ব্যবহার করি। প্রায় সব স্মার্টফোন ব্যবহারকারী ফেসবুকের সাথে সংযুক্ত। যখনই আমরা অবসর সময় পাই, সবাই ফেসবুকে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। ফেসবুকের মতো বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও আমরা অবসর সময় কাটাই। কিন্তু ফেসবুকের নিয়ম-কানুন সঠিকভাবে না জানার কারণে অনেকের আইডি হ্যাক হয়ে যায়। এভাবে নানা হয়রানি ও বিব্রতকর পরিস্থিতির শিকার হতে হয়।

ফেসবুক একাউন্ট এর সিকিউরিটি

আপনি যদি একটু সচেতন হতে পারেন তাহলে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়া থেকে রক্ষা করতে পারবেন হ্যাকাররা একটু অসতর্কতার সাথে আমাদের আইডি হ্যাক করতে পারে। আমি আজকের ব্লগে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিয়ে কথা বলবো। কীভাবে আপনার Facebook অ্যাকাউন্টকে আরও সুরক্ষিত রাখবেন তা জানুন। আপনি যা করবেন তা আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখবে। কোনো কারণে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে সঙ্গে সঙ্গে জানতে পারবেন। পুরো ব্লগটি পড়লে আশা করি ফেসবুকের নিরাপত্তা সংক্রান্ত আর কোন সমস্যা হবে না।

ইমেল ব্যবহার করেন

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার সময় আপনাকে অবশ্যই একটি ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করতে হবে। আপনি শুধুমাত্র একটি মোবাইল নম্বরের মাধ্যমে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন। যাইহোক, আপনার অ্যাকাউন্টের আরও নিরাপত্তার জন্য, ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করুন। আপনার ফোনে Facebook অ্যাকাউন্ট খুলতে আপনি যে ইমেল ঠিকানাটি ব্যবহার করেন তাতে অবশ্যই লগ ইন করতে হবে।

ফলস্বরূপ, আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে, আপনি অবিলম্বে ইমেল ঠিকানায় একটি বিজ্ঞপ্তি পাবেন। তারপরে আপনি সরাসরি আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হবেন। কিন্তু তাৎক্ষণিকভাবে তথ্য না পেলে অনেকবার হ্যাক হওয়ার পরও প্রতিবেদনটি উদ্ধার করা যায় না। তাই একটি সক্রিয় ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

মোবাইল নম্বর ব্যবহার করেন

কিছু নিরাপত্তা নির্দেশিকা অনুসরণ করে আপনার Facebook অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত করুন। কিন্তু ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করার সময় আমাদের অবশ্যই একটি মোবাইল নম্বর ব্যবহার করতে হবে। তবে, মোবাইল নম্বর এবং ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করে ফেসবুকে একটি প্রতিবেদন খোলা যেতে পারে। তবে সর্বদা মোবাইল নম্বর এবং ইমেইল দুটোই ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। আপনার মোবাইল নম্বরে নোটিফিকেশন চালু থাকলে অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত থাকবে।

See also  Oppo Find X5 Pro ২০২২ সালে নতুন রিলিজ হওয়া স্মার্টফোন

কেউ আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক করার চেষ্টা করার পরে, আপনি আপনার মোবাইল নম্বরটি লক্ষ্য করবেন। যদি আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে থাকে, আপনি যে কোনো কারণে আপনার মোবাইল নম্বরে Facebook থেকে একটি SMS পাবেন। ফলস্বরূপ, আপনি দ্রুত আপনার অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধার করার সুযোগ পাবেন। তাই সব সময় খোলা মোবাইল নম্বর ব্যবহার করুন। অর্থাৎ মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি করা।

টু-স্টেপ ভেরিফিকেসন (2 step verify)

আপনি যদি আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বাড়াতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই টু-স্টেপ ভেরিফিকেসন 2 step verify চালু করতে হবে। ফলে আপনি যখনই আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করবেন, তখনই সিকিউরিটি কোড মোবাইল নম্বরে চলে যাবে। আপনি যদি একটি নতুন ডিভাইস থেকে আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করতে চান তবে আপনাকে অবশ্যই একটি পিন ব্যবহার করতে হবে৷

ফেসবুক আপনার মোবাইল নম্বরে একটি এসএমএস পাঠিয়ে পিন দেবে। সেই পিন জমা না করে কেউ আপনার অ্যাকাউন্টে লগ ইন করতে পারবে না। তাই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটিটু-স্টেপ ভেরিফিকেসন 2 step verify চালু রাখতে হবে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড

আপনাকে অবশ্যই আপনার Facebook অ্যাকাউন্টে একটি শক্তিশালী লগইন পাসওয়ার্ড দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে।আপনার নাম বা ইমেল ঠিকানার সাথে মেলে এমন পাসওয়ার্ড কখনই লিখবেন না। হ্যাকাররা প্রায়ই নাম বা ইমেল ঠিকানা দিয়ে বিভিন্ন নম্বর দিয়ে লগ ইন করার চেষ্টা করে।

ফেসবুকে তিন থেকে চারবারের বেশি ভুল পাসওয়ার্ড দিলে আইপি লক হয়ে যায়। তারপরেও, আপনার কাছে সর্বদা একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড থাকবে। একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করতে, বড় অক্ষর, ছোট অক্ষর, সংখ্যা, চিহ্ন, ইত্যাদি একত্রিত করে একটি পাসওয়ার্ড তৈরি করুন। উদাহরণস্বরূপ, (Jks25@g$36HgG)।

Protect Your Facebook Account By Following Some Security Guideline

পরিচিতি আইডি যুক্ত করুন

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আপনার পরিচিত কয়েকজন বন্ধু যোগ করুন। ফলস্বরূপ, আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে, আপনি দ্রুত আপনার অ্যাকাউন্ট ফিরে পেতে পারেন। আপনার পরিচিত আইডি থেকে আপনার অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধার করার অনুরোধ ফেসবুকে করা যেতে পারে। তাই আপনার পরিচিত 4-5 জন বন্ধু যোগ করতে ভুলবেন না।

সঠিক নাম এবং জন্ম তারিখ ব্যবহার

আপনি যদি আপনার Facebook অ্যাকাউন্টের নাম জাতীয় পরিচয়পত্রের সাথে মেলে তবে এটি সাহায্য করবে। শিরোনাম এবং জন্ম তারিখ সঠিকভাবে ব্যবহার করুন। ফলস্বরূপ, যদি আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়, আপনি এখনও আইনি ব্যবস্থা নিতে পারেন। আপনি আপনার NID কার্ড জমা দিয়ে আপনার Facebook অ্যাকাউন্ট পুনরুদ্ধার করতে পারেন।

See also  মোবাইলের বিরক্তিকর এড বন্ধ করুন

অনেক সময় ফেসবুকে সন্দেহজনক লগইন করার জন্য অ্যাকাউন্ট লক করা হয়। আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ থাকলে, আপনি একটি NID কার্ড অফার করে এটি ফেরত পেতে পারেন। তাই একাউন্ট খোলার সময় অবশ্যই NID কার্ডের সাথে নাম ও জন্মতারিখ মিলিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

ফেসবুক গোপনীয়তা সেটআপ

আপনার অ্যাকাউন্টের গোপনীয়তা সেটিংস সঠিকভাবে পরীক্ষা করুন। এটি আপনার ব্যক্তিগত তথ্য এবং পোস্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। ফেসবুকের সেটিংস অপশন থেকে প্রাইভেসি সেটিংস খুঁজুন। আপনার গোপনীয়তা সেটিংস সঠিকভাবে লিখুন। এটি আপনার ডেটা নিরাপদ রাখবে। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী কিছু তথ্য সর্বজনীন করুন। আপনি কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য ব্যক্তিগত সংরক্ষণ করতে পারেন। আপনি এটি সেট আপ করতে পারেন যাতে শুধুমাত্র আপনার বন্ধুত্বপূর্ণ লোকেরা এটি দেখতে পারে৷

ব্যক্তিগত তথ্য

কিছু নিরাপত্তা নির্দেশিকা অনুসরণ করে আপনার Facebook অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত করুন। আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে কোনো ব্যক্তিগত তথ্য রাখার চেষ্টা করবেন না। অন্য কেউ তথ্য জানলে আপনার সমস্যা হতে পারে এমন কোনো তথ্য রাখবেন না।

আপনার অ্যাকাউন্ট যে কোনো সময় হ্যাক হয়ে গেলে হ্যাকাররা আপনার কোনো ব্যক্তিগত তথ্য খুঁজে বের করতে পারবে না। তাই সব সময় ফেসবুকে এ ধরনের তথ্য রাখা থেকে বিরত থাকুন। আমরা অনেকেই ফেসবুকে বিভিন্ন ব্যক্তিগত তথ্য গোপন রাখি। কিন্তু আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে হ্যাকার সহজেই আপনার ব্যক্তিগত তথ্য খুঁজে নেবে।

ফলে এই তথ্যের মাধ্যমে আপনি ব্ল্যাকমেইল করতে পারবেন। তাই ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়া সাইটগুলিতে কখনই আপনার ডেটা রাখবেন না। আপনার নাম, ঠিকানা বা জন্ম তারিখ ছাড়া অন্য কোনো তথ্য রাখবেন না। উদাহরণস্বরূপ, অনেকে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, ব্যাঙ্ক পাসওয়ার্ড, এটিএম কার্ডের পিন, ইমেল ঠিকানা এবং বিভিন্ন পাসওয়ার্ড সংরক্ষণ করে। ফেসবুকের মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন তথ্য কখনই রাখবেন না। ফলে আপনার তথ্য হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ফেসবুক প্রোফাইল কে কে দেখেছেন?

Facebook অবশ্য আমাদের কে সরাসরি প্রোফাইল ভিজিট করে তা দেখার সুযোগ দেয় না। Facebook আমাদের লাইক, কমেন্ট, শেয়ার এবং আবেগ দেখতে দেয়। তবে আপনি যদি চান, আপনি এটিও দেখতে পারেন যে ফেসবুক প্রোফাইলটি বিভিন্ন উপায়ে কে লক্ষ্য করেছে। আপনার সাম্প্রতিক আপলোড করা ফটো কে দেখেছে, কিন্তু আপনি সরাসরি Facebook থেকে দেখতে পাচ্ছেন না।

তবে বিভিন্ন অ্যাপ ব্যবহার করে অনেক সময় দেখা যায়। তবে আজকে আমি আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কে আপনার সাথে দেখেছে তা খুঁজে বের করার একটি উপায় নিয়ে আলোচনা করব। আপনি কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে সহজেই এটি করতে পারেন। তবে বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে এই কাজটি করলে সঠিক ফলাফল পাওয়া যায় না। এছাড়াও, আপনাকে এর মধ্যে অনেকবার আপনার ফেসবুক আইডি অ্যাক্সেস করতে হবে।

See also  মোবাইল এবং কম্পিউটারে তথ্য আদান-প্রদান করুন কেবল ছাড়াই

ফলে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে যেতে পারে। তাই আজকে আপনাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়া থেকে বাঁচানোর উপায় সম্পর্কে বলব। কে আপনার অ্যাকাউন্ট দেখেছে তা আপনি সহজেই খুঁজে পেতে পারেন।

Facebook অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত করুন

এটি করার জন্য একটি ডেস্কটপ বা ল্যাপটপ থাকা ভাল। প্রথমে, যেকোনো কম্পিউটার ব্রাউজারে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগ ইন করুন। আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগ ইন করার সময়, মাউসে ডান-ক্লিক করুন। ডান বোতামে ক্লিক করার পরে, আপনি পৃষ্ঠা উৎস দেখুন পাবেন। এবার ভিউ পেজ সোর্স টেক্সটে ক্লিক করুন।

আপনি এই পর্যায়ে নতুন ট্যাবে কোড দিয়ে ভরা একটি পুরো পৃষ্ঠা পাবেন- যার কোনোটিই আপনি বুঝতে পারবেন না।তবে সবকিছু নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। আমি ব্যাখ্যা করব কিভাবে আপনি এই দেখতে হবে। নতুন উইন্ডোতে Ctrl + F টিপুন। এটি অনুসন্ধান বিকল্পটি আনবে। সেখানে BUDDY_ID লিখে সার্চ করুন। 15 সংখ্যার কোডটি BUDDY_ID ট্যাগের ডানদিকে প্রদর্শিত হবে৷

একই শিরোনামের পাশে এরকম অনেক প্রবিধান দেখা যায়। যারা আপনার প্রোফাইলে এসেছেন তাদের প্রোফাইল আইডি এই কোড। এখন আইডিটি জানতে facebook.com সাইটে যান। Facebook.com-এর পাশে একটি স্ল্যাশ (/) চিহ্ন সহ 15-সংখ্যার কোডটি আটকান৷ এবার কীবোর্ডের এন্টার কী টিপুন। তারপর দেখবেন ফেসবুকে আপনার প্রোফাইল ভিজিট হয়েছে।

আপনি যদি মনে করেন যে ফেসবুক আইডি সন্দেহজনক, আপনি এটি ব্লক করতে পারেন। ফলস্বরূপ, তিনি আর কখনও আপনার প্রোফাইল খুঁজে পাবেন না। সেই আইডি থেকে আপনি কখনই আপনার প্রোফাইল দেখতে পাবেন না।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট রক্ষা করুন

এখন সার্চ অপশন বক্সে ‘InitialChatFriendsList’ টাইপ করুন। এটির পাশে, আপনি সংখ্যার একটি তালিকা পাবেন। এখানে আপনি আপনার টাইমলাইনে যারা এসেছেন তাদের ‘আইডি’-এর একটি তালিকা পাবেন। এখন আপনি এই আইডি চেক এবং দেখতে পারেন। আগের মতো, আপনি এই আইডিগুলিকে আপনার টাইমলাইনে কারা এসেছেন তা দেখা থেকে আটকাতে পারেন।

আমি আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করেছি যে আপনি যদি এই কাজগুলো সঠিকভাবে করতে পারেন তবে তা আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হওয়া থেকে রক্ষা করবে। যদি কোনো কারণে আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়ে থাকে, তবুও আপনি তা ফিরিয়ে আনতে পারেন। তাই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করার সময় অবশ্যই খুব সতর্ক থাকুন। আপনি আপনার আইডি সুরক্ষিত রাখতে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও, আপনার স্মার্টফোন অপরিচিত কাউকে দেবেন না।

শেষ কথা

ফলস্বরূপ, অপরিচিত ব্যক্তিরা যেকোনো উপায়ে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের অ্যাক্সেস নিতে পারে। তাই যেকোনো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করার সময় সতর্ক থাকুন। অনেকেই ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে নানা রকম ক্ষতি করার চেষ্টা করেন। অনেকেই আপনাকে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করবে। তাই ফেসবুক ব্যবহার করার সময় সচেতন হোন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button