স্মার্টফোন টিপস

পুরনো ফোনের আয়ু বাড়ানোর জন্য গোপনীয় টিপস

পুরনো ফোনের আয়ু বাড়ানোর জন্য গোপনীয় টিপস জেনে নিন। আজকাল আমরা প্রায় সবাই স্মার্টফোন ব্যবহার করি। স্মার্টফোন ছাড়া মানুষ সহজে খুঁজে পাওয়া যায় না। প্রতি বছর স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো গ্রাহকদের চাহিদার ভিত্তিতে নতুন মডেলের স্মার্টফোন বাজারে নিয়ে আসে। স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো তাদের গ্রাহকদের চাহিদার ভিত্তিতে নিয়মিত তাদের স্মার্টফোন আপডেট করে থাকে। কিন্তু এর মানে এই নয় যে স্মার্টফোন কোম্পানির সাথে তাল মিলিয়ে চলতে আপনাকে প্রতি বছর একটি নতুন স্মার্টফোন ব্যবহার করতে হবে।

পুরনো ফোনের আয়ু বাড়ানো

আপনি আপনার সুবিধামত যেকোনো সময় আপনার স্মার্টফোন পরিবর্তন করতে পারেন। কিন্তু আজ আমরা আলোচনা করব কিভাবে আপনি আপনার স্মার্টফোনকে অনেক বেশি সুরক্ষিত রাখতে পারেন। কিভাবে অনেক দিন ধরে আপনার স্মার্টফোন ব্যবহার করবেন। আমরা যদি আমাদের স্মার্টফোনগুলিকে একটু যত্ন সহকারে ব্যবহার করি তবে আমরা সেগুলিকে দীর্ঘ সময় ধরে ফোনে ব্যবহার করব।

একটি পুরানো ডিভাইসের কার্যকারিতা বজায় রাখার বিভিন্ন উপায় আছে। আপনি যদি সেই পদ্ধতিগুলি সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারেন তবে আপনি আপনার পুরানো স্মার্টফোনটি দীর্ঘ সময়ের জন্য ব্যবহার করতে পারবেন। এই সম্পর্কে আরো জানতে আজকের পুরো ব্লগ পড়ুন।

সফ্টওয়্যার আপডেট

আমাদের স্মার্টফোনে অনেক সফটওয়্যার আছে। এছাড়াও, আমরা গুগল প্লে স্টোর থেকে প্রচুর সফটওয়্যার ডাউনলোড করে ব্যবহার করি। আপনার স্মার্টফোনের সর্বোত্তম ব্যবহার করতে সবসময় সফ্টওয়্যার আপডেট রাখুন। প্রতিটি সফটওয়্যার কয়েকদিন পর পর নতুন আপডেট পায়। আপনি যেকোনো সফ্টওয়্যারে নতুন এবং উত্তেজনাপূর্ণ বৈশিষ্ট্য যুক্ত করতে আমাদের সম্পাদনা করেছেন।

যেকোনো সফটওয়্যার দিয়ে সবসময় আপনার স্মার্টফোন আপডেট রাখুন। তাহলে স্মার্টফোনের অনেক ভালো গতি পাবেন। পুরাতন সফটওয়্যারে কোন সমস্যা হলে তা আপডেট করা হবে। যেকোনো সফটওয়্যারের সমস্যা সমাধানের জন্য নিয়মিত আপডেট করা হয়।

তাই মোবাইল সফটওয়্যার সবসময় আপডেট রাখার চেষ্টা করুন। আপনি চাইলে সেটিংস থেকে অটো-আপডেট চালু রাখতে পারেন। ফলস্বরূপ, যখনই একটি নতুন আপডেট আসবে তখনই অ্যাপটি আপনার ফোনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট হবে। এছাড়াও, যেকোনো অ্যাপ আপডেট ফোনে একটি বিজ্ঞপ্তি পায়। আপনিও খবর দেখে আপডেট রাখতে পারেন। তাই সবসময় ফোনে তথ্য চেক করুন।

যখনই একটি অ্যাপ আপডেট করা হবে, আপনি এটি আপডেট করবেন। আপনি আইফোনে সফ্টওয়্যারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে ফোনের সেটিংসে যেতে হবে। তারপর অ্যাপ স্টোরে যান এবং অ্যাপ আপডেট চালু করুন। তাহলে আপনার ফোনের সমস্ত অ্যাপ অটো-আপডেট হয়ে যাবে।

See also  অনলাইন গেম খেলে টাকা ইনকাম করার উপায়

OS update

আপনি যদি একজন Android ব্যবহারকারী হন তবে আপনি নিয়মিত সিস্টেম আপডেট বিজ্ঞপ্তি পাবেন। যখনই আপনি একটি সিস্টেম আপডেটের জন্য একটি বার্তা পাবেন, আপনি আপনার স্মার্টফোনের সিস্টেম আপডেট করবেন। স্মার্টফোন কোম্পানিগুলো নিয়মিত তাদের অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেম আপডেট করে থাকে। তাই যুক্তিসঙ্গত গতিতে ব্যবহার করতে আপনার স্মার্টফোনকে নিয়মিত আপডেট রাখুন।

আপনি যদি বিজ্ঞপ্তিটি না পান তবে আপনি সেটিংসে সফ্টওয়্যার আপডেট বিকল্পটিও খুঁজে পেতে পারেন। আপনাকে প্রথমে ফোনের সেটিংস অপশনে যেতে হবে। আপনি “সফ্টওয়্যার আপডেট” নামে আরেকটি বিকল্প পাবেন। কোন নতুন আপডেট আছে কিনা দেখতে এখানে ক্লিক করুন। যদি কোন নতুন আপডেট থাকে, আপনি যে কোন সময় তাদের আপডেট করতে পারেন।

Confidential tips to extend the life of old phones

সফ্টওয়্যার আপডেট করার সময় আপনার ফোনে পর্যাপ্ত চার্জ রাখার চেষ্টা করুন। কারণ সফটওয়্যারটি আপডেট হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে। আপনি আইফোনের সিস্টেম দুটি উপায়ে সম্পাদনা করতে পারেন। প্রথমত, আপনি স্বয়ংক্রিয় আপডেট চালু করতে পারেন। ফলস্বরূপ, আপনার ফোনের যেকোনো আপডেট হবে একটি স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম আপডেট।

আপনি অটো-আপডেট চালু রাখলে, যেকোনো iPhone আপডেট স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফোনে ডাউনলোড হয়ে যাবে। আপনার ফোনে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে আপনাকে পরে আপডেট করা হবে। এছাড়াও, ফোনের সেটিংস অপশনে যান। আপনি সেটিংস বিকল্প থেকে সাধারণভাবে সফ্টওয়্যার আপডেট পাবেন। সিস্টেম আপডেটে ক্লিক করলে আপনার সিস্টেম আপডেট প্রক্রিয়া শুরু হবে। এই ভাবে, আপনি আপনার সিস্টেম আপডেট রাখতে পারেন।

অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ মুছে ফেলুন

বেশিরভাগ স্মার্টফোন অভ্যন্তরীণ স্টোরেজের উপর নির্ভর করে। আপনার ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজ এবং RAM যত বেশি হবে, আপনার ফোন তত দ্রুত চলবে। তাই আপনার ফোন পুরনো হলেও প্রয়োজনীয় অ্যাপগুলো ডিলিট করে দিন। এই অ্যাপগুলো আমাদের ফোনের RAM এবং ইন্টারনাল স্টোরেজ ব্যবহার করে। যার জন্য এখন আমাদের ফোন। সুতরাং, আপনার পুরানো ফোনটি যুক্তিসঙ্গত গতিতে ব্যবহার করতে, আপনাকে অবশ্যই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলি মুছে ফেলতে হবে।

এছাড়াও, অনেক অ্যাপ ডিফল্টরূপে প্রদান করা হয়, যা আপনি কখনই মুছতে পারবেন না। যাইহোক, তারা অক্ষম করা যেতে পারে। তাই আপনি আপনার অপ্রয়োজনীয় ডিফল্ট অ্যাপগুলি নিষ্ক্রিয় রাখতে পারেন। ফলে ওই অ্যাপগুলো আপনার ফোনের র‍্যামে কোনো প্রভাব ফেলবে না। এইভাবে, আপনি আরও ভাল গতিতে আপনার ফোন ব্যবহার করতে পারেন।

ফোন ব্যাক কভার ব্যবহার করুন

আপনার স্মার্টফোনটিকে সুন্দর রাখতে ফোনের কভার ব্যবহার করুন। ফোনের পিছনের কভার আপনার ফোনকে অনেক বেশি সুরক্ষিত রাখবে। প্রায়ই আমাদের হাত থেকে স্মার্টফোন পড়ে ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। স্মার্টফোন হাতে দেওয়ার পরও নানা সমস্যা হতে পারে। আপনার যদি ব্যাক কভার থাকে তবে আপনার ফোন অনেক বেশি নিরাপদ হবে। আমরা অনেকেই ব্যাক কভার ব্যবহার করতে চাই না। দুর্ঘটনা থেকে আপনার ফোন রক্ষা করতে ফোন কভার ব্যবহার করতে ভুলবেন না। এটি আপনার ফোনকে সবসময় নিরাপদ রাখবে।

See also  Realme GT Neo2 এই বছরের সেরা জনপ্রিয় স্মার্টফোন

ফোনের ডিসপ্লে পরিষ্কার করুন

আপনার ফোনের স্ক্রিন সবসময় পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। আপনার ফোনের স্ক্রিন ধুলোয় নোংরা হয়ে যায়। ফলে আমাদের পর্দায় অনেক দাগ দেখা যায়। তাই আপনি আপনার ফোনের স্ক্রিন নিয়মিত পরিষ্কার রাখতে পারেন। স্ক্রিন ক্লিনার একটি মাইক্রোফাইবার কাপড় ব্যবহার করতে পারে। এই কাপড় দিয়ে আপনি আপনার ফোনের স্ক্রিন পরিষ্কার রাখতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি বিভিন্ন অ্যালকোহল দিয়ে ফোনের স্ক্রিন পরিষ্কার করে সংরক্ষণ করতে পারেন। যাইহোক, এই ক্ষেত্রে, আপনাকে অবশ্যই বস্তুটি পরিষ্কার করতে হবে যাতে এটি খুব ভেজা না হয়। আপনি অল্প পরিমাণে অ্যালকোহল ব্যবহার করে ফোনের পর্দা পরিষ্কার করবেন। এটি আপনার স্ক্রিনটিকে আরও সুন্দর দেখাবে।

ফোন ইউএসবি পোর্ট পরিষ্কার করুন

পুরানো ফোনের আয়ু বাড়ানোর জন্য গোপনীয় টিপস: আমরা যখন স্মার্টফোন ব্যবহার করি, তখন চার্জিং পোর্ট, মাইক্রোফোন, স্পিকার এবং হেডফোন জ্যাকগুলিতে ধুলো জমা হয়। বিভিন্ন দূষণের কারণে এই রিপোর্টগুলির সাথে সমস্যা রয়েছে। তাই ফোনের এসব রিপোর্ট পরিষ্কার রাখতে হবে। এই অংশগুলি পরিষ্কার করতে আপনি একটি টুথপিক ব্যবহার করতে পারেন। তবে টুথপিক ব্যবহার করার সময় অবশ্যই যত্ন নেওয়া উচিত।

অনেক সময়, পরিচ্ছন্নতা যে কোনো রিপোর্ট নষ্ট করতে পারে। তাই পরিষ্কার করার সময় এগুলোর দিকে মনোযোগ দিয়ে দেখতে হবে। বিশেষত যেহেতু এই অংশগুলি সর্বদা খোলা থাকে, সেগুলি ধুলো এবং নোংরা হয়ে যায়। তাই নিয়মিত এই ময়লা পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন।

ফোন গরম হলে ব্যবহার করবেন না

আমাদের পুরানোগুলি কিছুক্ষণ ব্যবহার করার পরে প্রায়শই গরম হয়ে যায়। তাই যখনই ফোন খুব বেশি গরম হয়ে যায়, আপনাকে এটি ব্যবহার করা বন্ধ করতে হবে। কারণ ফোন বেশি গরম হলে ফোনে নানা সমস্যা হতে পারে। আমরা প্রায় সবাই আমাদের স্মার্টফোনে বিভিন্ন ধরনের গেম খেলি। গেম খেলার সময় আমাদের ফোন অনেক বেশি গরম হয়ে যায়। তাই ফোন খুব বেশি গরম হলে অবশ্যই তা ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

তারপর আপনি আপনার ফোন পাশাপাশি রাখতে পারেন। এছাড়াও, খুব গরম হয়ে গেলে ডিভাইসটি প্রায়ই স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যায়। এটি ফোনের ব্যাটারি লাইফের উপর অনেক প্রভাব ফেলে। ফোনের ব্যাটারি যে কোনো সময় নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করুন

আমরা যখন ফোন ব্যবহার করি, তখন আমরা অনেক তথ্য সংরক্ষণ করি। বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ফাইল ফোনে ধরে রাখতে হয়। কিন্তু আপনি যদি এই ফাইলগুলি অভ্যন্তরীণ স্টোরেজে রাখেন তবে এটি আপনার ফোনের গতি কমিয়ে দেবে। তাই ফোনে সব সময় মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। ফলে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র মাইক্রো-এসডি কার্ডে রাখতে পারবেন। এতে ফোনের গতি অনেক ভালো হবে।

See also  Oppo Find X5 Pro ২০২২ সালে নতুন রিলিজ হওয়া স্মার্টফোন

আপনার ফোন পুরানো হলে, আপনাকে অবশ্যই একটি ভাল মানের SD কার্ড ব্যবহার করতে হবে৷ এতে আপনার ফোনের র‍্যামের চাপ কমবে। ফোনের গতি আগের থেকে অনেক ভালো হবে। তবে নতুন ফোনে এসডি রেকর্ডার ব্যবহার করা যাবে না। ফোন পুরনো হয়ে গেলে নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই আমাদের ফোন যুক্তিসঙ্গত রাখতে একটি SD কার্ড ব্যবহার করতে হবে।

ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট

পুরানো ফোনের আয়ু বাড়ানোর গোপনীয় টিপস: ফোনের ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না।আমরা যখন নিয়মিত ফোন ব্যবহার করি তখন আমাদের প্রচুর ইন্টারনাল স্টোরেজ ব্যবহার করতে হয়। ফোনে সফটওয়্যার ব্যবহার করলে অভ্যন্তরীণ স্টোরেজে অনেক জায়গা লাগে। এটি ফোনের র‍্যামের উপরও অনেক প্রভাব ফেলে। ফোনে আরও সমস্যা হলে, আপনি ফ্যাক্টরি রিসেট করতে পারেন।

এটি আপনার ফোনটিকে আগের মতো পরিষ্কার করে তুলবে। ফলস্বরূপ, আপনি সমস্ত ফোন ডেটা মুছে ফেলতে পারেন এবং এটিকে একেবারে নতুন ফোনের মতো দেখাতে পারেন। তবে ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট করার আগে প্রয়োজনীয় ফাইল ফোনে সেভ করে নিন।

পুরনো ফোনের আয়ু বাড়ানোর জন্য গোপনীয় টিপস

কারণ আপনি যখন ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট করবেন, তখন ফোনে কোনও ডেটা থাকবে না। ফোন হবে নিষ্পাপ। তাই দীর্ঘক্ষণ ফোন ব্যবহার করার পর আপনাকে অবশ্যই ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট করতে হবে। এটি করার মাধ্যমে আপনি আপনার ফোনে আরও ভাল গতি পাবেন। এছাড়াও আপনি আপনার পুরানো ফোন অনেক ভালো ব্যবহার করতে পারবেন। আমরা অনেকেই ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট সম্পর্কে জানি না।

আমাদের ফোনের অভ্যন্তরীণ স্টোরেজ সম্পূর্ণ হয়ে গেলেও আমরা বুঝতে পারি না। আমি এই ফোনে একটি নতুন অ্যাপ ইনস্টল করতে পারছি না। যখনই আমি একটি নতুন অ্যাপ ইন্সটল করতে চাই তখনই বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়।সুতরাং আপনি কিছু সময়ের জন্য ফ্যাক্টরি ডেটা রিসেট রাখলে এটি সাহায্য করবে।

আজকে আমি আপনার মোবাইল ফোনে আপনার সাথে যা আলোচনা করেছি তা যদি আপনি অনুসরণ করেন তবে আপনি আপনার পুরানো ফোনটি আরও ভাল ব্যবহার করবেন। এই কাজগুলো করে আপনি পুরনো ফোনটিকে অনেক বেশি গতিতে ব্যবহার করতে পারবেন।

শেষ কথা

তাই ফোনটি সবসময় যত্ন সহকারে ব্যবহার করুন। অপ্রয়োজনীয় অ্যাপগুলি মুছে ফেলার চেষ্টা করুন এবং আপনার ফোনের অভ্যন্তরীণ মেমরি খালি রাখুন কারণ অভ্যন্তরীণ মেমরি যত বেশি পূর্ণ হবে, আপনার ফোনটি স্লো হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button